হালিশহরে ওয়াসার পানিতে জীবানু নেই বললেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন

জিন্নাত আয়ুব, ব্যুরো চীফঃ

চট্টগ্রাম নগরের হালিশহর আগ্রাবাদ সিডিএ সহ আশপাশের এলাকায় ওয়াসার সরবরাহকৃত পানিতে জন্ডিসে আক্রান্ত হওয়ার মত কোন ক্ষতিকারক জীবানু পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনেরর মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।
বৃহস্পতিবার (০৫ জুলাই) দুপুরে কর্পোরেশনেরর কে বি আব্দুচ ছত্তার মিলানায়তনে তিনি এ তথ্য প্রকাশ করেন।
এসময় কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব,মোঃ সাইফুউদ্দীন খালেদ, শৈবাল দাশ সুমন চসিক প্রধান স্কাস্থৌ কর্মকরতা ডাঃ সেলিম আকতার চৌধুরী, চট্টগ্রাম ডেপুটি সিভিল সার্জান ডাঃ হুমায়ন কবির,চট্টগ্রাম ওয়াসার সহকারী প্রকৌশলী ইফতেখার উল্লাহ মামুন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
সম্প্রতি সময়ে চট্টগ্রাম ও বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক সহ অনলাইন পোর্টালে ওয়াসার পানি পান করে হালিশহর আগ্রাবাদ ও আশপাশের এলাকার মানুষ জন্ডিসে আক্রান্ত হওয়ার সংবাদ প্রকাশিত হয়,এর প্রেক্ষিতে কর্পোরেশন সরবরাহকৃত ওয়াসার পানিতে জন্ডিস ও মানব দেহের জন্য ক্ষতিকারক কোন জীবানু আছে কিনা তা নির্ণয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সেলিম আকতার চৌধুরীকে আহবায়ক করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে।কমিটি অপর দু সদস্য হলেন,চট্টগ্রাম ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ হুমায়ন কবির ও চট্টগ্রাম ওয়াসার সহকারী প্রকৌশলী ইফতেখার উল্লাহ মামুন।
কর্পোরেশন গঠিত তদন্ত কমিটি বাংলাদেশ কাউন্সিল অব সাইন্টিফিক এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিয়াল রিচার্স (বিসিএআইআর)এর সহায়তায় হালিশহর আগ্রাবাদসহ আশপাশের এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শন করে বিভিন্ন এলাকায় বাসভবনের ১ টি স্পট থেকে সংরক্ষিত রিজার্ভারের পানি ও ওই এলাকার ওয়াসার সরবরাহকৃত পানি রিজার্ভারে সংরক্ষণের পূর্বে সংযোগ লাইন থেকে নিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে দেখার ব্যবস্থা নেয়,যাতে ১৪ টি আবাসিক বাসভবনের সংরক্ষিত রিজার্ভারের পানিতে জীবানু পাওয়া গেলেও ট্যাংকে সংরক্ষণের পূর্বে ওয়াসার সংযোগ লাইনের সংগৃহীত পানির নমুনায় জন্ডিস আক্রান্ত হওয়ার কোন জীবাণু পাওয়া যায়নি।
এছাড়াও ওয়াসার সংরক্ষিত বাটালী পাহাড় রিজার্ভার ও নাসিরাবাদ রিজার্ভারের পানি নমুনা সংগ্রহের পর পরীক্ষা করে দেখা যায় তাতেও জন্ডিস,কলেরা কিংবা ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার মত কোন জীবাণুর উপস্থিতি পাওয়া যায় নাই, তবে কিছু কিছু জায়গায় আব্সিক বাসভবনে রিজার্ভারের পানিতে ক্ষতিকারক ক্লোরিফর্ম পাওয়া যায়,যার মাত্রা ছিল ১১শ সিএফইউ বা ১শ এম এল,যে সমস্ত জায়গায় ক্লোরিফর্ম পাওয়া যায় সেগুলো হলো ফইল্যাতলী খালেদ ভিলা,হালিশহর আবিদ পাড়ার পেয়ার আলী কুঞ্জে,আগ্রাবাদ সিডিএ এর ১৭ নং রোডে হাউজ নং ১০৮ একই এলাকার হাউস নং ০২/৪ ইত্যাদি।
সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন হালিশহর আগ্রাবাদ এলাকার বাসিন্দাদের আতংকিত না হয়ে চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃপক্ষেরর সাথে যোগাযোগ করে তাদের নির্দেশিত পন্তায় রিজার্ভারে পানি সংরক্ষন ও ব্যবহারের আহবান জানান,এতে পানি রোগ জন্ডিস,ডায়রিয়া ও কলেরার ঝুকি কমবে।

1,325 total views, 2 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Lost Password?